মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

চিরিঙ্গা ইউনিয়নের ইতিহাস

চিরিংগা ইউইনয়নের নামকরণের ইতিহাস:

চকিরয়া উপজেলার অধিকাংশ ইউনিয়ন ও গ্রামের নামকরণ ব্যাক্তি চেতনার উৎসর্গীকৃত। এমনকি ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র অনেক পাড়াও ব্যক্তির নামে নামকরণ করা হয়েছে দেখা যায়। প্রাচীনকালে অত্রাঞালে বিভিন্ন স্থানসমূহের নামকরণে ব্যক্তি চেতনায় এয প্রাধ্যন্য ছিল তা এখনো পুরোপুরি অক্ষুন্ন আছে। কক্সবাজার এজলা নিজেই মিস্টার কক্স‌‌‌‌,র নাম থেকে সুষ্ট। চকিরয়ার চিরিংগা, লক্ষ্যারচর, ভেওলা, মানিকচর, বদরখালী সাহারবিল,, পূর্ব বড় ভেওলা পশ্চিম বড় ভেওলা, হারবাং, ফাসিয়াখালী প্রভুতি এলাকা ও পেকুয়ার টৈটং ব্যক্তি নাম থেকে উখিত কয়েকিট স্থানের উদাহরণ।ইউনিয়নের সিংহভাগ গ্রাম এবং পাড়ার নামও ব্যক্তি নামে নামায়িত। গবেষণায় দেখা যায় যে, সামন্ত যুগে ব্যক্তি প্রাধান্যের কারণে এলাকাগুলোর নামকরণে প্রভাবশালী ব্যক্তির নাম সব সময় প্রাধান্য পেয়ে এসেছে। এখনো চকিরয়ায় স্থানিক নামকরণে ব্যক্তি নামের প্রাধ্যন্য লক্ষ্য করা যায়।

সুদুর প্রাচীনকালে কাশী বা বানারস রাজবংশের একজন লোক আরাকানে এসে সর্বপ্রথম একটি পিরকল্পিত রাজ্য স্থাপন করেছিলেন। প্রবাদমতে তার নাম ছিল টৈটং। টৈটং র মৃত্যুর পর ত্বদীয় পুত্র কোমি আরাকানের রাজ হয়। বর্তমান চাদা শহরের নিকটস্থ রামাবতী বা রামরী নামক স্থানে কোমির রাজধানী ছিল । বানারস রাজ বংশের কোন এক রাজার দশজন পুত্র ছিলেন। দশ পুত্রের হাতে রাজ্যভার অর্পিত হলে তারা প্রজাদের উপর অকট্য নির্যাতন শুরু করে দেন। রাজাদের অত্যাচার ও নিপীড়নে জর্জরিত প্রজাগণ প্রচন্ড বিদ্রোহী হয়ে ওঠে এবং দশ ভাই বোনসাত জনকে হত্যা কের অবশিষ্ট তিন জনকে রাজ্য থেকে তাড়িয়ে দেয়। অত্যাচারী দশ ভাইয়ের নিষ্টুর শাসনের অবসানের পর প্রজ্য সাধারণ তাদের এক বোনকে আরাকানের সিংহাসনে আরোহন করান্। তিনি রামরী থেকে সবচেয়ে ছোট ভোইয়ের নাম ছিল চেরাং । জনরোযেতার আবকাং ভাই নিহত হলে প্রাণ ভবে তিনি সদলবলে বর্তমান চিরিংগা নাম পরিচিত এলাকায় এসে বসতি স্থাপন শুরু করেন। অল্প কিছু দিনের মধ্যে তিনি ঐ এলাকা দখল করে সামন্ত শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্টার মাধ্যমেআরোহন করান। তিনি রামরী থেকে তীর রাজধানী সরিয়ে আরাকানে এনে নতুন রাজধানী শহর স্থাপন করেন। উপরে বর্ণিত দশ ভাইরের মধ্যে সবচেয়ে ছোট ভাইয়ের নাম ছিল চেরাং। জনরোষে তার অধিকাংশ ভাই নিহত হলে প্রাণ ভয়ে তিনি সদলবলে বর্তমান চিরিংগা নামে পরিচিত এলাকায় এসে বসতি স্থাপন শুরু করেন। অল্প কিছু দিনের মধ্যে তিনি ঐ এলাকা দখল করে সামন্ত শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে চকরিয়ার আত্যন্তরীন শাসনতার হস্তগত করেন। ঐতিহাসিকদের অভিমত, শাসক চেরাং এর নামানুসারে চিরিংগা নামকরণ হয়। বর্তমানে পৌরসভাস্থ চিরিংগা শহর এবং চিরিংগা ইউনিয়ন চেরাংর নামানুসারে রাখা হয় বলে অধিকাংশ গবেষকদের বিশ্বাস।